Take a fresh look at your lifestyle.

কবিতা গুচ্ছ

278

 

★১★

ঈদের হাসি

এম মনির

ঈদের হাসি পাগল করে
নতুন করে সাজে।
হরেক রকম পোশাক পড়ে
খোকা খুকী হাসে।
পোলাও ফিরনী সেমাই খেয়ে
ঈদের গান গাই।
সব বয়সী সালাম করে
কত খুশি হায়।।

★২★

নবী এবং কবি

গোলাম ফারুক

নবীদের কাজ কি? সবাই-তা জানি!
বদমাশ ভালো হলো-তাঁরে মানি মানি।
যুগে যুগে দেশে দেশে-অজ্ঞতা,কুসংস্কার,হানাহানি,
নবীদের আগমনে হলো দূর-সব পাপ-গ্লানি।
দো-জাহানের কল্যাণ পথ-দেখান,শুনিয়ে পবিত্র বাণী,
পরকালে পাবে সাজা-করো যদি পাপ,রাহাজানি!
ইহকালে পাবে ভালা-পরকালে কামিয়াব,
স্রষ্টার আইন মানো,পাবে কৃপা,সব গোনাহ মাফ।
কবিদের কাজ ঠিক-নবীদের মতো,
অন্যায় কাঁদায় তাঁরে-হৃদয়েতে পরে ক্ষত।
দেখে দেখে লিখে লিখ-কালে কালে লড়ে যান,
বিভিষিকা ভেদ করে-পান্জেরী হয়ে যান।
নবীগন কবি সবে-কবি কভু নবী নন,
নবীগন সর্বদাই স্রষ্টার – মনোনীত হন।
বাসনা একই দু’য়ের-দর্শাবেন শান্তির পথ,
জুলুম সয়েও তাঁর-অবিচল মনোরথ।
নবীগন নিষ্পাপ – কথা কাজ সাফ সাফ,
পেয়েছেন সবে মাফ-পরকালে নাই অনুতাপ।
কবিগন মানুষ বটে- হয় তাঁর ভুল,
পরকাল ভাবেন না তিনি-ইহকাল নিয়ে মশগুল!

★৩★

ভালোবাসা মানে

মোঃ রায়হান কাজী

ভালোবাসা মানে তোমার কথা ভাবা,
শিরা-উপশিরা জুড়ে রক্তে ঢেউ ওঠা।
বিরহ বালুতে দুজন পাশাপাশি খালিপায়ে হাঁটা,
পরম আবেশে পরস্পরকে বন্ধনে কাছেটানা।
ভালোবাসা মানে হৃদয়ে হৃদয় জরিয়ে রাখা,
সংগীত স্রোতে মনোহরণ করা অতলান্ত নেশা।

ভালোবাসা মানে কালবৈশাখী ঝরে দিক হারা,
আঁধার কালো মেঘে চারদিক ছেয়ে থাকা।
বৃষ্টির দিনে ছাতা হাতে দুজনে হেঁটে যাওয়া,
ঠান্ডা শীতল হাওয়ায় স্নিগ্ধ জোছনায় মৃদু হাসা।
ভালোবাসা মানে কপির পেয়ালায় চুমুক দেওয়া,
আড্ডা বাজিতে দুজন এক সাথে গল্পবুনা।

শেষ হয়ে যাওয়া কথার পর রেশ মুখে থাকা,
অব্যক্ত কথাগুলো মনের কোণে আগলে রাখা।
তোমার কথা মনে এলে তোলপাড় জীবন-জোড়া,
আলোর গহ্বরে সাথে দীর্ঘকক্ষণ একসাথে চলা।
তোমার কথা আজও মনে পড়লে রক্তে ঢেউ ওঠে,
তুমি বসে আমি দাঁড়িয়ে ঝড় হয় হৃদয়ে সর্বদা।

★৪★

আমাদের ঈদ

ইবনে ইসলাম

ঈদের দিনে শুনবো না কারো কান্না
ঈদ এসেছে করুক সবাই
খিরনি পায়েশ খোরমা পোলাও রান্না।
নতুন জামা টুপি পরে ঈদগাহে যায়
ধনি-গরীব নেই ভেদাভেদ সবাই ভাই ভাই। ঈদগাহে করি মোরা দ্বীন কায়েমের পণ একবিংশ শতাব্দী হোক আল-কুরআনের সন
আফগানিস্তান ফিলিস্তিনে ঝরছে কেন রক্ত ঈদের দিনে খানা খেয়ে মোরা কেন তৃপ্ত।
আমার দেশ ঈদের দিনে চলছে কত রান্না কাশ্মীর আর ফিলিস্তিনে বইছে রক্তের বন্যা।
ঈদের দিনে ওদের চুক্ষু নয়তো কেন খান্ত
মহান খুশির এ দিনে বিশ্ব কেন অশান্ত। বাতিলেরা চাইনা মাগো পালন করি ঈদ তাইতো মাগো হায়েনাদের চোখে নিদ।
কেমন করে বলো মাগো খুরমা পায়েস খায়
ফিলিস্তিনিরা লাশ নিয়ে চলেছে ঈদগায়।
ফিলিস্তিনীদের মুখে দেখবো যখন হাসি
ঈদের খানা খাবো তখন হোক মাগোতা বাসি।

★৫★

শিক্ষার হাতে খড়ি

সরদার মুক্তার আলী

ছোট বেলায় যেতাম পাঠশালাতে
ইস্কুল তো নয় তার বারান্দাতে
দিনে ও নয় প্রত্যহ রাতের বেলা
লম্ফ হাতে আঁধারে পথ চলা।
মাঝে মাঝে তো উগ্র বাতাসে
তাও নিভে যেতো পথের পাশে
ধাক্কা খেতাম প্রায় মাদার গাছে
কলম খাতা বই কি ঠিক আছে।
জামা প্যান্টের কোন বালাই নাই
তবুও পৌঁছতে হবে পাঠশালায়।
এভাবে উঠি যে ক্লাস টু তে
পাঠশালা বন্ধ একটা ঝাপটাতে।
কেউ একজন বলল তো বাবা কে
মেধাবী তোমার এই ছেলেটাকে
ভাইরে দাওনা তারে ফের পাঠায়ে
পাশের ঐ সরকারি বিদ্যালয়ে ।
সেই হতে আমার নতুন পথ চলা
আর কারুর ই তো লাগেনি বলা
ভর্তি কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে
বর্তমানে চলছি ব্যাংকার হয়ে।

চেতনায় সাহিত্য  –

এডমিন  প্যানেল

Leave A Reply

Your email address will not be published.