Take a fresh look at your lifestyle.

ছায়ার মায়া

356

পথের পরে রোদের ছায়া এলোমেলো মন,

দূর আকাশে নীলের আবীর থমকে গেল ক্ষণ।
কোথাও যেন কেউটি নেই কো,
সুনসান চারিধার।
চোখের নোলক হারিয়ে গেছে,
ভুল পথে বহুবার।

রোদ্দুরে দেয় গা এলিয়ে অহেতুক দুপুর,
মনের জানালায় মন পড়ে রয়;
বাজিয়ে নানান সুর।
সমান্তরাল পথের বাঁকে কে জানি কে ডাকে,
সুখ কুঁড়িয়ে অসুখ বোধে দুঃখগুলো ঢাকে।
নদীর মতো জলের মতো আকাশ নীলের মায়ার মতো,
তুমিও আমায় যখন তখন খুব নেশাতে বাঁধো।

তাই তো আমি তোমার তরে,
এই আমিটার লাগাম টেনে;
সমান্তরাল হাঁটি।
টুপ করে ওই নীল আকাশটা হৃদ বৃন্তে তুলে নিয়ে,
সুখ সুখ এক ভালালাগার বিছাই শীতলপাটি।
তোমার আপন না হওয়াটা,
তোমায় নিজের করে না পাওয়াটা;
অনুরাগের বসত ভিটায় সাজিয়ে আমি রাখি।
গোপন গহিন অনুভবে তোমার তরে বয়ে চলে,
আমার প্রণয় সাকী।

তোমার সাজিয়ে রাখা ঘর দুয়ারে,
রোদের আদর মায়া গড়িয়ে পড়ে;
গড়িয়ে পড়ে নির্জনতা দুপুর সুখের মিছিল হয়ে।
সেই মিছিলে লিখে দিলাম মৌনতার এক সুখ স্লোগান,
ভালোবাসি নীলের মতো,রোদের মতো, ছায়ার মতো।
শহর জুড়ে নিত্য সাজে প্রকৃতির আবীর যেমন।

তোমার মনের মাঝ দরিয়ায় নোঙ্গর গেড়ে বৈঠা খুঁজি,
তোমার মায়া মোহ প্রেমে মিইয়ে পড়া বিকেল আজি।
মুঠো মুঠো শূন্যতারে উড়িয়ে আকাশ মেঘের খামে,
সাদা মেঘের বুকের ওমে বৃষ্টি বিন্দু আমিই সাজি।
আমার শহর নিরব হলে বিষণ্নতার মন ব্যাধিতে,
উড়িয়ে ধুলো কুড়িয়ে নুড়ি;
তোমার নামেই ধরি বাজি।
সমান্তরাল রেলের পথে তোমার হাতে হাতটি রেখে,
কল্পনাতে আল্পনাতে তোমার সাথেই বসত করি।
ছায়া ছায়া মায়া মায়া অনুরাগের দারুণ নেশায়,
তোমার নামেই নামটি সঁপে কেবল ছায়ার প্রেমে পড়ি।

 

নাজনীন নাহার – কবি।

Leave A Reply

Your email address will not be published.