Take a fresh look at your lifestyle.

পোস্টমার্টেম – ২

245

 

শিহাব আজ হাসপাতালে যায়নি। সারাদিন বাসায়।হঠাৎ কলিং বেল বাজতেই শিহাবের আম্মু দরজা খুললেন। একজন ভদ্রমহিলা বোরকাপরিহিতা সালাম দিলেন। উত্তর দিতেই শিহাবের আম্মুকে উদ্দেশ্য করে বললেন ডাঃ শিহাবের বাসা এটা?শিহাবের আম্মু বললেন জ্বী বলুন।
উনি বাসায় আছেন?
হ্যাঁ আছে, আপনি কোথা থেকে?
আমি ওনার সাথে একটু কথা বলবো। খুব পরিচিত মনে হচ্ছে আপনাকে। আমি রবীন্দ্রনাথ সড়কে থাকি। ডাঃ পিয়াসার আম্মু।
চমকে উঠলো শিহাবের আম্মু। কিছু বুঝে উঠতে পারার আগেই বললেন আসুন ভিতরে।
ড্রয়িং রুমে বসতে দিয়ে বললেন আমি আসছি আপনি বসুন। ভদ্রমহিলা মিষ্টির প্যাকেট আর কিছু ফল শিহাবের মায়ের হাতে দিয়ে বললেন বাচ্চাদের দিবেন।
শিহাবের মা ছেলের রুমে ঢুকে বললেন আববু পিয়াসার মা এসেছে কি ব্যাপার তোমার সাথে দেখা করতে চায়। শিহাব বললো আচ্ছা তুমি ওনাকে চা নাশতা দাও আমি একটু ফ্রেশ হই।
শিহাবের আম্মু নাশতা রেডি করে চায়ের পানি বসিয়ে ড্রয়িং রুমে গেলেন।
এদিকে শিহাব পিয়াসাকে ফোন দিয়ে বললো কি হয়েছে হঠাৎ আন্টি বাসায় আসলেন?
পিয়াসা, তোমার সাথে আম্মু একটু কথা বলতে গিয়েছেন।তুমি আজ হাসপাতালে আসোনি।আর তাছাড়া আমার মনটা ভীষণ খারাপ তাই আম্মুকে আমি পাঠিয়েছি।
ঠিক আছে রাখছি পরে কথা বলবো।
পিয়াসার মায়ের জন্য চা দিয়ে ছেলের রুমে আবার গেলেন শিহাবের আম্মু। ওনাকে আসতে বলবো? না আমি আসছি বলে শিহাব মায়ের পিছু পিছু এসে সালাম দিয়ে বললো আন্টি কেমন আছেন? হ্যাঁ বাবা ভালো আছি। তুমি আজ হাসপাতালে যাওনি?
না আন্টি আজ ছুটি আমার। বলে পাশের সোফায় বসলো। কিন্তু শিহাবের আমমুর সামনে পিয়াসার আম্মু কোনকিছুই বলতে পারছিলেন না যেনো। শিহাবের আম্মু বিষয়টি বুঝতে পেরে অগত্যা উঠে গেলেন।
উনি উঠতে না উঠতেই পিয়াসার আম্মু শিহাবের দুহাত জড়িয়ে ধরে বললেন, বাবা আমার মেয়েকে বাঁচাতে পারবোনা ও ভীষণ অসুস্থ হয়ে পড়েছে। তোমার সাথে ওর কি কথা হয়েছে জানিনা। তবে আজ দুইদিন হলো সে কিছু খায়না। কারো সাথে কথা বলেনা। আজ সে বললো তুমি শিহাবের সাথে একটু দেখা করে এসো। তাই এসেছি বাবা।
শিহাব মাথা নিচু করে বসে রইলো। কিছু বলে ওঠার আগেই শিহাবের আম্মু বিষয়টি আঁচ করতে পেরে ড্রয়িং রুমে এসে বসলেন। শিহাব উঠে গেলো।
শিহাবের আম্মু পিয়াসার মাকে উদ্দেশ্য করে বলে উঠলো, আপা আপনি কি শিহাবকে জামাই বানানোর জন্য এসেছেন?
এটা অসম্ভব। আমার ছেলের বিয়ে ঠিক করে ফেলেছি সুতরাং এটা আর ভাববেন না।
পিয়াসার মায়ের মাথায় যেনো আকাশ ভেঙ্গে পড়লো। খানিকটা সময় নিরবে বসে থেকে বললেন আপা এ আপনি কি বলছেন? ওরাতো একে অপরকে পছন্দ করে। আর তাছাড়া আমি যতোবার দেখেছি শিহাবকে ওর মতো একজন ভদ্রছেলে আমার চোখে পড়েনি।
শিহাবের আমমু বলে উঠলো সবই ঠিক আছে আপনার মেয়ে সুন্দরী সেও ডাক্তার সুতরাং তার জন্যও ভালো কিছু অপেক্ষা করছে। কিন্তু যেখানে আমাদের ঐতিহ্য বংশ মর্যাদা জড়ানো সেখানে আমি অন্য কিছু ভাবতে পারিনা। আমি আর কিছু বলতে চাইনা।
পিয়াসার আম্মু আরো কিছু সময় নিরবে বসে থেকে বললেন আপা আমি আসি তাহলে। অনেক দোয়া রইলো শিহাবের জন্য। আপনাদের জন্য। উনি চলে গেলেন।

( চলবে…….)

 

পারভীন আকতার পারু – সহ সম্পাদক, চেতনা বিডি ডটকম। 

Leave A Reply

Your email address will not be published.