Take a fresh look at your lifestyle.

পোস্টমার্টেম – ৩

137

 

গোধূলির আলো নিভে যাওয়ার সাথে সাথে নেমে এলো নিকষ কালো আঁধার রাত। শিহাব পিয়াসার জীবনেও যেনো ঐদিন নেমে এলো কোন এক কালো ছায়া। শিহাব ঘরে ঢুকেই দরজা লাগিয়ে দিলো। সারারাত মনে হয় ফোনে কথা বললো আর নতুন কোন সিদ্ধান্তে উপনীত হলো ওরা।
শিহাবের আম্মু কয়েকবার ছেলেকে ডাকলো। ভিতর থেকে ছেলে বললো আমার শরীর ভালোলাগছে না। আমি রাতে খাবোনা।
শিহাবের বাবা অবসরপ্রাপ্ত জামিল সাহেব, রাতে বাসায় ফিরলো ব্যাবসায়ীক কাজ কর্ম শেষ করে। সবকিছু শোনার পর কোন কিছুই বললেন না তিনি। ওনার এসব বিষয়ে কোন খেয়াল নাই বললেই চলে। ছেলে মেয়ের লেখা পড়ার দায় দায়িত্ব দেখভাল সব যেনো শিহাবের আম্মুর কাজ। সারাদিন টাকার নেশা তাকে তাড়িয়ে নিয়ে বেড়ায়। আর যত্ন আত্তির জন্য শিহাবের আম্মুতো আছেই।
পরদিন খুব সকালে বেরিয়ে গেলো ডাঃ শিহাব।
বৃহস্পতিবার একটু তাড়াতাড়িই যেতে হয় কারণ ঐদিন দিনরাত তাকে অপারেশন থিয়েটারেই থাকতে হয়।
শিহাবের আম্মুও গতকাল থেকে ভীষণ দ্বিধান্বিত। কি করবেন না করবেন বুঝে উঠতে পারছেন না। ভুগছেন আত্মপীড়নে। একটাই ছেলে তার জীবনটা আসলে কিভাবে চলবে না চলবে সারাদিন ফোনে ফোনে বাবার বাড়ি শ্বশুর বাড়িতে কথা বলছেন।
এদিকে শিহাবের জন্য কথা বলে রাখা পাত্রীর বাড়ি হতে বারবার ফোন আসছে কবে কখন তাদের বাড়িতে যাবে না যাবে সেই প্রসঙ্গে। এমন পাত্র যেনো কোন রকমই হাতছাড়া করতে চায়না পাত্রী পক্ষ।
শিহাব অপারেশন শেষ করে অনেক রাতে বাড়ি ফিরলো। ওর আম্মু দরজা খুলে দিতেই সোজা ঘরে যেয়ে দরজা লাগিয়ে শুয়ে পড়লো।
পরদিন শুক্রবারে শিহাবের অপারেশন ছিলো সকাল থেকেই। জুম্মার নামাজ শেষ করে বাসায় ঢুকে ফ্রেশ হয়ে খাবার টেবিলে এলো। সবাই একসঙ্গে খেতে বসলো।
খাবার টেবিলে শিহাবের দু বোন মা বাবা সবাই আছেন। শিহাবের আম্মু খাবার দিতে দিতে কথা তুললো “শিহাব তুই কবে যেতে পারবি বাবা, মেয়ে দেখতে? শিহাব খানিক্ষণ চুপ করে থেকে বললো তোমারা দেখলেই হবে, আমার দেখতে হবেনা”।
শিহাবের বাবা বলে উঠলন, এ কেমন কথা? বিয়ে করবি তুই আর মেয়ে দেখবিনা তাতো হয়না বলে জামিল সাহেব চূপ করে রইলেন। যেনো তার সব কথা ঐ পযর্ন্তই।
শিহাব বলে উঠলো তোমারা আগামী রবিবার যেতে পারো ঐদিন আমার ছুটি আছে।
শিহাবের আম্মু যেনো কিংকর্তব্যবিমূঢ়। কোন কথাই তার মুখ থেকে আর বের হলোনা। কিছু একটা ভাবলেন এমনই হয়তো কেনো তার ছেলে এতো সহজেই যেতে চাইলো? পিয়াসার সাথে কি এমন কথা হলো তার? কোন অসংগতি নয়তো?
হঠাৎ বেজে উঠলো শিহাবের ফোন…..

( চলবে )

 

পারভীন আকতার পারু – সহ সম্পাদক,  চেতনা বিডি ডটকম। 

Leave A Reply

Your email address will not be published.