Take a fresh look at your lifestyle.

ঈমান নষ্টকাররী কাজ ও চরিত্র

215

 

হাদিসঃ

বহয ইবনে হাকীম (রঃ) তার পিতা থেকে তার দাদা মায়াবিয়া ইবনে হায়দা কুশাইরী(রঃ) এর সূত্রে বর্ণনা করেছেন নবী করীম (সঃ) এরশাদ করেছেনঃ
নিশ্চয়ই ক্রোধ ঈমানকে এমনভাবে খারাপ করে দেয় যেমন ‘ইলুয়া’ মধুকে খারাপ করে দেয়।
–বায়হাকি

সৃষ্টিগতভাবে মানুষের মধ্যে দুটি বৈশিষ্ট্য আছে-পশুত্ব ও মনুষ্যত্ব।
মানুষ যখন ক্রোধ বা রাগন্বিত হয় তখন সে মানুষত্যবোধ হারিয়ে ফেলে পশুত্ব তার মধ্যে মাথাচাড়া দিয়ে উঠে সে হিতাহিত জ্ঞান শুন্য হয়ে দিশেহারা হয়ে যায়।

শয়তান তখন তার উপর প্রাধান্য বিস্তার করে ফলে ইসলামী শরিয়তের সকল বিধিবিধান সে লংঘন করে বসে এ অবস্থায় তার ঈমান নষ্ট হয়ে যায়। মহান রবের দৃষ্টিতে তার কোন সম্মান থাকেনা।

তাই মহানবী(সঃ) চরম ধৈর্যের সাথে রাগ বা ক্রোধ কে নিয়ন্ত্রণ করে এর থেকে দূরে থাকার নির্দেশ দিয়েছেেন। মানুষিক দুর্বলতার কারনে ক্রোধ বা রাগের মাথায় আমরা যেন এমন কোন কাজ করে না বসি যার ফলে আমরা পরক্ষণেই লজ্জিত হই এবং আমাদের ঈমান খারাপ বা নষ্ট হয়ে যায়। তাই এ ব্যাপারে আমাদের অত্যন্ত সতর্ক থাকতে হবে এবং ক্রোধ নিবারণের জন্য প্রাণ পন চেষ্টা করতে হবে।

‘ই’লুয়া’ এমন এক দ্রব্য যা মধুতে পড়লে মধুর স্বাদ বিকৃত বা নষ্ট করে দেয়।তেমনি ক্রোধ ও মানুষের ঈমানকে খারাপ বা নষ্ট করে দেয়।

মহান রব্বুল আ’লামীন আমাদেরকে ক্রোধ সংবরণ করার তৌফিক দিন এবং আমাদের ঈমানকে হেফাজত করুন। আমিন। 

মোঃ আতিকুর  রহমান 

কবি-সাহিত্যিক ও এডমিন

চেতনায় সাহিত্য 

Leave A Reply

Your email address will not be published.