Take a fresh look at your lifestyle.

সুযোগটা আমরাই দেই

40

 

আমরা অনেকেই এই ভুলটা করে থাকি, আমাদের জীবনের সুখের “চাবিটা” আমাদের প্রিয় মানুষটির হাতে তুলে দেই, আমরাই সুযোগটা দেই , অধিকারটা সেদিন হয়তো আমরাই দিয়ে রাখি! আমাদের ভালো থাকার জগতটা তাকে ঘিরে তৈরি করি। নিজের হাতে কিছুই থাকে না তখন!! নিজেকে উজাড় করে দেই। নিজের থেকে ,আমাদের আপন জনদের থেকে বেশি ইম্পরট্যান্টস দিতে থাকি আমাদের সেই প্রিয় মানুষটিকে। মাত্রাতিরিক্ত ভালোবেসে ফেলি । আমরা যতটা নিজেদের উজাড় করে দেই ততটাই পাবার প্রত্যাশা করি প্রিয় মানুষটির থেকে। আর এই চাওয়াটাই বারবার কষ্ট দেয় আমাদের।
একটা সময় এমন পরিস্থিতিও আসে যে ,তাকে পাওয়ার জন্য , একটু কথা বলার জন্য ঘন্টার পর ঘন্টা অপেক্ষা করি, না পেয়ে অস্থির হয়ে উঠি , পাগলামি করি, নির্লজ্জের মত সময় ভিক্ষা চাই, ভালোবাসা ভিক্ষা চাই। প্রশ্ন করি কেন, কেন সে আমাকে এত এড়িয়ে চলছে? তাই নিয়ে কত অভিযোগ , রাগ,অভিমান শুরু হয়। এতে সম্পর্ক ক্রমশ খারাপের দিকে অগ্রসর হতে থাকে , ছোট বড় কথার উদ্ভব হয়। সবই অতিরিক্ত ভালোবাসার কারণেই করে থাকি কিন্তু আমাদের প্রিয় মানুষটি আমাদের মন বোঝে না। সারাক্ষণ আমাদের ভুল বোঝে , দিন দিন আমাদের গুরুত্ব কমতে থাকে! আমাদের প্রতি বিরক্ত হয়। এভাবে দিনের পর দিন দূরত্ব বাড়ে । আর আমরাও হতাশায় ভুগি, একাকিত্বে ভুগি। অবহেলা অতি মারাত্মক , যা জীবনকে অনেক সময় মৃত্যুর পথে ঠেলে দেয়!

আমাদের একটা কথাই ভাবতে হবে , আমরা কিন্তু সবাই ” গড গিফ্টেড” আমরা প্রত্যেকে “স্পেশাল” সুতরাং কারোর গুরুত্ব দেওয়ার উপর আমাদের জীবনে ভালো থাকা নির্ভর করে না। কারোর জন্য আমাদের মনের শান্তি, নিজের সময় , এনার্জি নষ্ট করা কক্ষণো উচিত নয়!! নিজেকে ভালোবাসতে হবে, নিজের প্রতি টাইম স্পেন্ড করতে হবে , নিজেকে ভালো লাগার কাজে নিয়োজিত রাখতে হবে। একটাই জীবন সেটা উপভোগ করতে হবে। এমন যেন না হয়, একদিন নিজের অস্তিত্বের উপর নিজেরই প্রশ্ন ওঠে!
যে আমার গুরুত্ব বোঝে না অকারণে অবহেলা করে অবজ্ঞা করে তাকে তার মত ছেড়ে দেওয়ায় শ্রেয়। প্রতিটা মানুষের উচিত অপর দিকের মানুষটি আমাদের যেভাবে নেবে তাকেও আমাদের ঠিক সেভাবেই নেওয়া । যে আমাদের একটু সময় দিতে নারাজ সে সারাজীবন কিভাবে আমাদের পাশে থাকবে! কিভাবে ভালোবেসে খুশিতে ভরিয়ে রাখবে! সুখে দুঃখে হাতে হাত রেখে এতটা পথ কিভাবে চলবে! আমরা এই বাস্তবটা ধীরে ধীরে বুঝতে শিখি বটে কিন্তু অনেক দেরি হয়ে যায়! অবশ্য ভুল থেকেই মানুষ শিক্ষা পায়, আর এই শিক্ষায় একটি জীবন বদলে দেয়, আমরা নিজেদের সঠিক পথে চালনা করার শক্তি অর্জন করি!

“ভালোবাসা” যেমন পৃথিবীর বুকে সবচেয়ে বেশি গভীর ও সুখের অনুভূতি আবার এই ভালোবাসাই সবচেয়ে দুঃখের ও কষ্টের।

হয়তো আমাদের সময় লাগে প্রিয় মানুষটির স্মৃতি ভুলতে , চোখের জলে ভেসে যাই। কিন্তু আমরা ঠিকই একদিন সবটা সামলে উঠতে পারি। এলোমেলো হয়ে যাওয়া জীবনটাকে একটু একটু করে গুছিয়ে নিয়ে আগের মত আবার স্বাভাবিক হতে পারি। আমরা আমাদের মনটাকে নিয়ন্ত্রণ করতে সক্ষম হই!

 

 

রুণা বিশ্বাস – কবি ও সাহিত্যিক।

Leave A Reply

Your email address will not be published.