Take a fresh look at your lifestyle.

ক্যান্সার পর্ব ৩০

260

হাড়ের ক্যান্সারের প্রথম লক্ষণ হলোঃ
১। ব্যথাঃ আক্রান্ত ব্যক্তির হাড়ের ব্যথা হাড়ের ক্যান্সারের সর্বাধিক সাধারণ লক্ষণ। প্রথমে ব্যথা স্থির হয় না। এটি রাতে বা হাড় ব্যবহার করার সময় খারাপ হতে পারে, উদাহরণস্বরূপ, হাঁটার সময় পায়ে ব্যথা হতে পারে। ক্যান্সার বাড়ার সাথে সাথে ব্যথা সব সময় থাকবে এবং ক্রিয়াকলাপের সাথে আরও খারাপ হবে। তবে ক্যান্সারের অবস্থান এবং আকারের উপর নির্ভর করে লক্ষণগুলি পৃথক হতে পারে।
ফোলাঃ জয়েন্টগুলিতে বা কাছের টিউমারগুলির প্রভাবিত অঞ্চলে ফোলা বা কোমলতা দেখা দিতে পারে। ব্যথার জায়গায় ফোলাভাব কয়েক সপ্তাহ পরে নাও হতে পারে। টিউমারটি কোথায় রয়েছে তার উপর নির্ভর করে ভর অনুভব করা সম্ভব হতে পারে। ঘাড়ের হাড়ের ক্যান্সারগুলি গলার পিছনে এমন একগিরি হতে পারে যা খাদ্য গ্রহন করতে সমস্যা করতে পারে বা শ্বাস নিতে হাড় শক্ত করে তোলতে পারে।
ভাঙ্গাঃ হাড়ের ক্যান্সার হাড়ের ভিতরে অবস্থান করে হাড়কে দুর্বল করে তুলতে পারে তবে বেশিরভাগ সময় হাড় ভাঙা (ব্রেক) হয় না। হাড়ের টিউমারের পাশে বা তার মধ্য দিয়ে একটি ফ্র্যাকচারযুক্ত হাড়ের হঠাৎ গুরুতর ব্যথা দেখা দেয়, যা কয়েক মাস ধরে চলতে পারে।
অন্যান্য লক্ষণঃ মেরুদণ্ডের হাড়ের ক্যান্সার স্নায়ুগুলির উপর চাপ দিতে পারে, অসাড়তা এবং টিজিং বা এমনকি দুর্বলতা সৃষ্টি করে।
ওজন হ্রাসঃ অন্যান্য ক্যান্সারের মতো হাড্ডি ক্যান্সারের লক্ষণেও ওজন হ্রাস এবং ক্লান্তি হতে পারে। যদি ক্যান্সারটি অভ্যন্তরীণ অঙ্গগুলিতে ছড়িয়ে যায় তবে এটি অন্যান্য লক্ষণগুলির কারণও হতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, যদি ক্যান্সার ফুসফুসে ছড়িয়ে পড়ে তবে এটি শ্বাসকষ্টের কারণ হতে পারে। হাড়ের ক্যান্সারও স্বাভাবিক চলাচলে হস্তক্ষেপ করতে পারে এবং হাড়কে দুর্বল করতে পারে, যা মাঝে মাঝে ফ্র্যাকচারের দিকে নিয়ে যায়। অন্যান্য লক্ষণগুলির মধ্যে ক্লান্তি, জ্বর, ওজন হ্রাস এবং রক্তাল্পতা অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে। যদিও এলক্ষণগুলি কোন কোন সময় ক্যান্সারের নিশ্চিত লক্ষণ নয়। এই লক্ষণগুলি প্রায়ই ক্যান্সার ব্যতীত অন্যান্য অবস্থার কারণে যেমন আঘাত বা বাতজনিত কারণেও হয়ে থাকে। তবুও, যখন কোন কারণ বিহীন সমস্যাগুলি দীর্ঘকাল ধরে চলে তখন আমাদের অবশ্যই ডাক্তারের কাছে জানানো উচিত এবং মেডিক্যাল পরীক্ষা নিরীক্ষা যথাসম্ভব দ্রুত করানো উচিত। এসব নিয়ে মোটেও সময় ক্ষেপন না করাই ভালো।
হাড়ের ক্যান্সার কীভাবে নির্ণয় করা হয়?ঃহাড়ের ক্যান্সার নির্ণয়ের জন্য, ডাক্তার রোগীর ব্যক্তিগত এবং পারিবারিক চিকিত্সার ইতিহাস সম্পর্কে জিজ্ঞাসা করেন এবং একটি সম্পূর্ণ চিকিত্সার পরীক্ষা করেন। Alkaline phosphate নামক Enzymes এর স্তর নির্ধারণের জন্য ডাক্তার রক্ত ​​পরীক্ষা করার পরামর্শ দিতে পারে। হাড়ের টিস্যু গঠনের কোষগুলি যখন খুব সক্রিয় থাকে তখন রক্তে প্রচুর পরিমাণে ক্ষারীয় ফসফেটেজ পাওয়া যায় । যেহেতু এই Enzymes এর উচ্চ মাত্রা সাধারণতঃ ক্রমবর্ধমান শিশু এবং কিশোরদের মধ্যে পাওয়া যায়, এই পরীক্ষা হাড়ের ক্যান্সারের সম্পূর্ণ নির্ভরযোগ্য সূচক নয়।
আজ এ পর্যন্ত শেষ করব। ভালো লাগলে নিজে পড়ুন এবং অন্যকে শেয়ার করুন। সবার সুস্বাস্থ্য ও নিরাপদ জীবন কামনা করে আল্লাহ্‌ হাফেজ।
(চলবে)

রওশন চৌধুরী, সহ সম্পাদিকা, চেতনা বিডি ডটকম

Leave A Reply

Your email address will not be published.