Take a fresh look at your lifestyle.

আঁধারের পাণ্ডুলিপি

  কোনো কোনো নির্ঘুম রাতে  নিজেকে বড় একা মনে হয়, মৌন আঁধার রাতের কান্নায়  নিঃসঙ্গতার নোনা জল মিশে রয়।    নতমুখী তনু মন জুড়ে এক অদ্ভুত আঁধার আসে  জীবনের স্বরলিপি গুমরে কাঁদে দীর্ঘশ্বাসের মরচে পড়া খামে।…

বীভৎস সভ্যতা

নিখিল পৃথিবী করেছেন সৃষ্টি কতো যে সুন্দর করে যেদিকে তাকাই মুগ্ধ হয়ে যাই দেখি দুই নয়ন ভরে। গাছপালা তরুলতা পাহাড় পর্বত চিত্তাকর্ষক প্রবাহিত ঝর্ণাধারা প্রতিপালকের হুকুম পালন করে মানুষের সেবায় নিয়োজিত তারা। আশরাফুল…

মুনাজাত

প্রভু ক্ষমা করো আমি ট্রেন লাইন চ্যুত  আখেরাতে পাড় হবো যে সে বিষয়ে শঙ্কিত । করলাম কত জারিজুরি কামাই অবৈধ টাকাকড়ি রোজ হাশরে ভয়ে মরি, করো না আমায় লাঞ্ছিত। হায়, আমি এ কী করিনু ভোগের সামনে নতজানু এতিম, দুঃস্থ, আত্মীয়দের না করি যেন…

দায়

- বিয়ে করবে আমাকে? আরশি তার বড় বড় চোখ দুটো মেলে অবাক দৃষ্টিতে তাকায় তারেকের দিকে। আরশির অবাক হওয়া দৃষ্টি দেখে কাঁধ ঝাঁকিয়ে স্মিত হাসে সে। - দেখ পাত্র হিসাবে খারাপ নই। কলেজের চাকরী, বাবার রেখে যাওয়া বাড়ি, নিজের গাড়ি, এক্সিভিশন…

ইট রঙের বাড়ির টুকরো অংশ

"আপনার স্ত্রী কি প্রায়ই এমন ভয় পান?" "জ্বি। " নাগিব বসে আছে সাইকোলজির এক প্রফেসরের সামনে। ভদ্র মহিলা সাইকোলজিস্ট প্লাস কাউন্সিলর। তার চোখ মহিলার টেবিলের উপর রাখা নেমপ্লেটের উপর। মহিলার নাম আফরিনা খান। "নাগিব সাহেব! " "জ্বি! " "আপনাদের…

আত্নতৃপ্তি

দুমুঠো স্বার্থ বিকিয়ে এক মুঠো সুখ কিনতে চেয়েছি হৃদয়ের দায়ে । হে প্রেমিক ; বহিছে তরতাজা অশ্রুজল তোমারি চরণে , এক বিন্দু লবণাক্ততা ছুঁয়ে দেখবে কি ? কতটা অনুভব সেখানে লুকিয়ে আছে । পাঁজরের অয়ন বাঁকে অবরুদ্ধ তোমারি অধীরতা,…

জোছনার ছায়া

লোকটা পানের পিক নদীর পানিতে ফেললো।রিনি জড়সড় হয়ে বসে আছে নৌকার ছৈয়ের ভেতরে ।নৌকাটা বেশ বড় হলেও লোকটা রিনির পাশেই বসেছে।মুখের পান শেষ না করেই নতুন একটা পান বানাচ্ছে। চুন,সুপারি খুব যত্ন করে লাগিয়ে রিনির দিকে বাড়িয়ে দিয়ে বললো,"…

বৃষ্টি জলে ভালোবাসা

অঝোর ধারায় বৃষ্টি হচ্ছে। রুশার খুব ইচ্ছা করছে বৃষ্টিতে ভিজতে। তার ঠান্ডার সমস্যা, বৃষ্টিতে ভেজা মানেই টানা সাতদিন যাবত জ্বর আর টনসিলে ভোগার জন্য প্রস্তুতি রাখা। তবুও তার প্রবল ইচ্ছে বৃষ্টিতে ভেজার, ইচ্ছেটা আসলে এ কারণেই, সে চায়…

কোথায় গেলো নদী

আমার গাঁয়ের দুই পাশে দুই নদী কলোকলো ছলোছলো বইতো নিরবধি। এই নদীতে পারাপারের দুইটা ছিলো খেয়া, কাশেম আবেদ দুই মাঝিতে যাত্রী আনা নেয়া- রাত্রি-নিশি মধ্য দুপুর কিংবা সোনাভোর যাত্রী পারাপারেই তাদের আজনমের ঘোর। হঠাত করেই বদলে…